বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৭:২৫ অপরাহ্ন
ঘোষণাঃ
বহুল প্রচারিত বঙ্গবাজার পত্রিকায় আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আজই যোগাযোগ করুন,এছাড়াও আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া কোন ঘটনা, দুর্ঘটনা, দুর্নীতি, ভালো খবর, জন্মদিনের শুভেচ্ছা, নির্বাচনি প্রচারণা, হারানো সংবাদ, প্রাপ্তি সংবাদ, সংর্বধনা, আপনার সন্তানের লেখা কবিতা, ছড়া,গান প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। ❤️দেশ সেরা পত্রিকা হতে পারে আপনার সহযাত্রী ❤️

চিলমারীতে রাস্তার কাজে অনিয়মের অভিযোগ

  • বঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ প্রকাশিত রবিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২২
  • ৭৭ বার পড়া হয়েছে

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের চিলমারীতে রাস্তা মেরামত ও ড্রেন নির্মাণ কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ড্রেনের ছলিংয়ে নিম্নমানের পুরাতন ইট বিছিয়ে বালুর পরিবর্তে ভিটি মাটি দিয়ে ফিলিংসহ রাবিশ খোয়া ও পরিমানে কম সিমেন্ট দিয়ে কাজ করছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

জানা গেছে,কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপদ বিভাগের তত্বাবধানে উপজেলার রমনা রেলস্টেশন থেকে কলেজ মোড় হয়ে গোলাম হাবিব মহিলা ডিগ্রী কলেজ পর্যন্ত ১কোটি ৫০লক্ষ টাকা চুক্তিমুল্যের ২কি.মি রাস্তা সংস্কার ও ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। নওগাস্থ আমিনুল হক নামে একজন ঠিকাদার কাজটি পায় যা বাস্তবায়ন করছেন মোস্তাফিজার রহমান সাজু নামে কুড়িগ্রামের ঠিকাদার। এর মধ্যে চিলমারী সরকারী কলেজ মোড় কবরস্থান থেকে ড্রেনের কাজ শুরু করা হয়েছে। সেখানে ড্রেনের ছলিং এ নিম্নমানের পুরাতন ইট বিছিয়ে বালুর পরিবর্তে ভিটি মাটি ও পানি দিয়ে ফিলিং করা হয়। এ অনিয়মের জন্য শনিবার স্থানীয়রা কাজে বাধা দিলে কিছুক্ষনের জন্য কাজ বন্ধ থাকে। এসময় স্থানীয় মাসুম,হিমু,আপনসহ এলাকাবাসী অনেকেই জানান,পুরাতন নিম্নমানের ইটের ছলিং বিছিয়ে তার উপরে ভিটি মাটি দিয়ে পানি দিচ্ছে তাতে ছলিং এ কাদা জমে থাকছে। এভাবে কাজ করলে অল্প দিনের মধ্যে ড্রেন নষ্ট হয়ে যাবে। পরে ওই দিনই বিকেলে নিম্নমানের রাবিশ খোয়া দিয়ে সিসি ঢালাই শুরু করেন তারা। একই এলাকার সবুজ,পলাশ,সাজু, ফারুকসহ অনেকে জানান রাস্তার এক পাশ্বে ড্রেন দিলেও অপর পাশ্বে কত পরিমান জায়গা ব্যাবহার করা হবে সে বিষয়ে কোন সমাধান না করেই তরিঘড়ি করে দায়সাড়াভাবে নিম্নমানের সামগ্রী দিয়ে ড্রেনের কাজ শুরু করা হলেও কর্তৃপক্ষের নজরদারী নেই। তারা আরও বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ করলেও সড়ক ও জনপদ বিভাগের কোন তত্বাবধান নেই। এলাকাবাসীর কথার মুখে দায় এড়াতে রোববার দুপুরের পর রফিকুল ইসলাম নামের একজন কার্যসহকারীকে পাঠানো হলেও তিনি কাজ সম্পর্কে কিছুই জানেন না। নিম্নমানের পুরাতন ইটের বিষয়ে কাজটি দেখভালের দায়িত্বে থাকা সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-সহকারী প্রকৌশলী ফয়সাল আহমেদ বলেন,ওই ইট বাদ রেখে নতুন ইটে কাজ করতে বলা হয়েছে।

সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী তানভির হামিদ জানান,রাস্তা থেকে উঠানো ইট কাজের উপযোগী হলে তা দিয়ে কাজ করার প্রভিশন রয়েছে। তবে কাজ দেখভালের দায়িত্বে থাকা উপ-সহকারী প্রকৌশলী আছেন তিনি সবকিছু দেখবেন।

কুড়িগ্রাম সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম বলেন,নতুন ইট দিয়ে কাজ করতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে এসডিই সাহেবের সাথে কথা বলার পরামর্শ দেন তিনি।

এই ধরনের আরও খবর

Advertising

আর্কাইভ

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন এখানে

জেলা প্রতিনিধি হতে যোগাযোগ করুন

সপ্তাহের সেরা ছবি

© All rights reserved © 2022 bongobazarpatrika.com
Theme Download From ThemesBazar.Com