বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ০৬:০৩ অপরাহ্ন
ঘোষণাঃ
বহুল প্রচারিত বঙ্গবাজার পত্রিকায় আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আজই যোগাযোগ করুন,এছাড়াও আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া কোন ঘটনা, দুর্ঘটনা, দুর্নীতি, ভালো খবর, জন্মদিনের শুভেচ্ছা, নির্বাচনি প্রচারণা, হারানো সংবাদ, প্রাপ্তি সংবাদ, সংর্বধনা, আপনার সন্তানের লেখা কবিতা, ছড়া,গান প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। ❤️দেশ সেরা পত্রিকা হতে পারে আপনার সহযাত্রী ❤️

উলিপুরে প্রতারণার শিকার নদী ভাঙন প‌রিবার

  • বঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ প্রকাশিত বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৫১ বার পড়া হয়েছে
কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ কুড়িগ্রামের উলিপুরে সাড়ে চার লাখ টাকা দিয়ে জমি কিনতে গিয়ে প্রতারণার শিকার হয়েছেন ভাঙন কবলিত দুটি পরিবার। জমি রেজিস্ট্রি করে না দিয়ে উল্টো প্রাণ নাশসহ নানান হুমকি ধামকি দিচ্ছে প্রভাবশালীরা। এতে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন অসহায় পরিবার দুটি। এ বিষয়ে স্থানীয়ভাবে একাধিক সালিস বৈঠক হলেও কোন সুরাহা হয়নি। পরে বাধ্য হয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউপি চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন।
স্থানীয় ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ধামশ্রনী ইউনিয়নের কাশিয়াগাড়ী গ্রামের মুনসুর আলীর ছেলে মমিনুল ইসলামের কাছ থেকে ২০১৬ সালে খতিয়ান নম্বর ৫০২ ও ২৪৮ নম্বর দাগের ২৮ শতক জমি ক্রয় করেন ব্রহ্মপুত্র নদের ভাঙনের শিকার অসহায় জাহিদুর রহমান ও আলতাফ হোসেন। মমিনুল ইসলাম স্থানীয় স্বাক্ষীগণের উপস্থিতে সমুদয় টাকা পরিশোধ করে নেন এবং  কবলা দলিল করে দিবেন বলে স্টাম্পে লিখে দেন। কিন্তু দীর্ঘ  সাত বছরেও তিনি জমি দলিল না করে দিয়ে নানান তালবাহানা করে আসছেন এবং বিভিন্ন প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছেন। এ ছাড়া ইতিমধ্যে স্থানীয় গণমান্য ব্যক্তিবর্গ নিয়ে ১০-১২ টি মিটিং করে সময় নিয়ে কালক্ষেপণ করছেন। তার চার মেয়ে ও জামাতা এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং নারী সংক্রান্ত মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল খাটাবেন বলে হুমকিও দিচ্ছে। এমতাবস্থায় অসহায় ওই পরিবার দুটি আতঙ্ক ও উৎকন্ঠায় দিনাতিপাত করছেন।
জমি বিক্রেতা মমিনুল ইসলামের সাথে কথা হলে জমিটি বিক্রয় করার কথা স্বীকার করলেও জমি রেজিস্ট্রি করে দিচ্ছেনা কেন এমন প্রশ্নের উত্তর জানতে চাইলে এ বিষয়ে কোন বক্তব্য দিতে রাজি হননি তিনি।
ধামশ্রেণী ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম বলেন, বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে সমস্যাটির সমাধান করতে পারি নাই। আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বসে বিষয়টি সমাধান করা হবে।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম হোসেন মন্টু বলেন, এ নি‌য়ে অ‌নেক‌দি‌ন থে‌কে ঝা‌মেলা চল‌তে‌ছে, কিন্তু বিষয়‌টি ফয়সালার চেষ্টা ক‌রে ব‌্যর্থ হ‌য়ে‌ছি।

 

এই ধরনের আরও খবর

Advertising

আর্কাইভ

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন এখানে

জেলা প্রতিনিধি হতে যোগাযোগ করুন

সপ্তাহের সেরা ছবি

© All rights reserved © 2022 bongobazarpatrika.com
Theme Download From ThemesBazar.Com