রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১১:০১ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঘোষণাঃ
বহুল প্রচারিত বঙ্গবাজার পত্রিকায় আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আজই যোগাযোগ করুন,এছাড়াও আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া কোন ঘটনা, দুর্ঘটনা, দুর্নীতি, ভালো খবর, জন্মদিনের শুভেচ্ছা, নির্বাচনি প্রচারণা, হারানো সংবাদ, প্রাপ্তি সংবাদ, সংর্বধনা, আপনার সন্তানের লেখা কবিতা, ছড়া,গান প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। ❤️দেশ সেরা পত্রিকা হতে পারে আপনার সহযাত্রী ❤️

বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন

  • বঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ প্রকাশিত বুধবার, ১০ জানুয়ারী, ২০২৪
  • ৩০ বার পড়া হয়েছে

রুবেল আহমেদ :

আজ ১০ জানুয়ারী, পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্ত হয়ে প্রিয় স্বদেশের মাটিতে প্রত্যাবর্তন করেছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। কারাগারে থাকতে বারবার বলেছিলেন, ‘আমাকে যদি তোমরা মেরেও ফেলো তবু আমার লাশটা প্রিয় বাংলাদেশের মাটিতে পৌঁছে দিও তোমরা।’

এরোপ্লেনের সিঁড়িতে ভুট্টো খুব নরম সুরে বঙ্গবন্ধুকে বললেন, ‘কোনো একটা সম্পর্ক কি আমাদের মধ্যে রাখা যায় না?’

বঙ্গবন্ধু ভুট্টোর দিকে বিচলিত হয়ে তাকিয়ে বললেন, ‘দেখো ভুট্টো! আমি এইসব নিয়ে এখন একদমই আলোচনা করতে চাই না। তোমার যা প্রস্তাব আছে সেটার উত্তর আমি বাংলাদেশের মাটিতে নামার সাথে সাথে তোমাকে দিবো।’

৮ জানুয়ারী ১৯৭২, বঙ্গবন্ধু রাওয়ালপিন্ডি থেকে লন্ডনের হিথ্রো বিমানবন্দরে পৌছালেন। বিমান থেকে নামার সাথে সাথে এয়ারপোর্টে লাউডস্পিকারে বলা হলো, ‘Bangabandhu Sheikh Mujibur Rahman is here.’

বঙ্গবন্ধু তখনো বাংলাদেশের আনুষ্ঠানিক রাষ্ট্রপ্রধান না। কিন্তু তাকে রাষ্ট্রপ্রধানের মর্যাদায় হিথ্রো এয়ারপোর্টের ভি.আই.পি লাউঞ্জে নেওয়া হলো। ভি.আই.পি লাউঞ্জের প্রধান দরজায় একজন ব্রিটিশ রয়েল গার্ড দাঁড়িয়ে থাকেন। এই রয়েলগার্ড স্ট্যাচুর মত দাঁড়িয়ে থাকে এবং কোনোরকম নড়া-চড়া করার নিয়ম নেই। কিন্তু সেদিন রয়েল গার্ড নিয়ম ভঙ্গ করে এক পা বাড়িয়ে বঙ্গবন্ধুকে স্যালুট দিয়ে বললেন, ‘Sir, we have been praying for you.’

বঙ্গবন্ধু রয়েল গার্ডের কাধে হাত রেখে মুচকি হাসি দিলেন। রয়েল গার্ডের চোখে পানি রীতিমত টলমল করছিলো।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিথ বঙ্গবন্ধুকে ফোন করে বললেন, ‘আপনাকে আমরা রাষ্ট্রপ্রধানের সম্মাননা দিচ্ছি। তাই রাষ্ট্রপ্রধানের নিরাপত্তায় আপনাকে ক্ল্যারিজ হোটেলে থাকতে হবে।’

বঙ্গবন্ধু হেসে বললেন, ‘আমি তো রাসেলস স্কয়ারে ছোট হোটেলগুলোতে থাকতাম। ওখানে বাঙালিরা সহজে আসতে পারে। আমাকে রাসেলস স্কয়ারে ব্যবস্থা করে দাও।’

হিথ উত্তর দিলো, ‘দেখো তুমি তো হেড অফ স্ট্রেট হিসাবে আমাদের অতিথি। তোমার সব কথা আমরা মানার চেষ্টা করবো। কিন্তু এই কথাটা মানতে পারবো না। কারণ হেড অফ স্টেটের নিরাপত্তা শুধুমাত্র ক্ল্যারিজেজ হোটেলেই হয়।’

বঙ্গবন্ধু ক্ল্যারিজ হোটেলে পৌঁছালেন। তাকে রাষ্ট্রপ্রধানের মর্যাদায় গার্ড অফ অনার দেওয়া হলো। বিকাল গড়াতেই ক্ল্যারিজ হোটেলের সামনে লোক সমাগম হতে শুরু করলো।

এই ধরনের আরও খবর

Advertising

আর্কাইভ

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন এখানে

জেলা প্রতিনিধি হতে যোগাযোগ করুন

সপ্তাহের সেরা ছবি

© All rights reserved © 2022 bongobazarpatrika.com
Theme Download From ThemesBazar.Com