রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ০৯:১৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
ঘোষণাঃ
বহুল প্রচারিত বঙ্গবাজার পত্রিকায় আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিতে আজই যোগাযোগ করুন,এছাড়াও আপনার আশেপাশে ঘটে যাওয়া কোন ঘটনা, দুর্ঘটনা, দুর্নীতি, ভালো খবর, জন্মদিনের শুভেচ্ছা, নির্বাচনি প্রচারণা, হারানো সংবাদ, প্রাপ্তি সংবাদ, সংর্বধনা, আপনার সন্তানের লেখা কবিতা, ছড়া,গান প্রকাশ করতে যোগাযোগ করুন। ❤️দেশ সেরা পত্রিকা হতে পারে আপনার সহযাত্রী ❤️

আড়াই ঘণ্টার নাটকের শেষ, ভারত আর বাংলাদেশ দুই দলই চ্যাম্পিয়ন

  • বঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ প্রকাশিত শুক্রবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪
  • ২৪ বার পড়া হয়েছে

ভুলটা ম্যাচ কমিশনারের, সেটির মাশুল কোন দল দিল এ নিয়ে বিতর্ক চলবে বাংলাদেশ ও ভারতে। ম্যাচের মীমাংসা খেলায় না হলে বিতর্ক থাকাই স্বাভাবিক। তা অনূর্ধ্ব-১৯ মেয়েদের সাফের ফাইনালে আজ চূড়ান্ত নাটকের পর অবশেষে মধ্যপন্থাই বেছে নিয়েছেন ম্যাচ কমিশনার – বাংলাদেশ ও ভারতকে যুগ্ম চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হয়েছে।

টসের পর আড়াই ঘণ্টা ধরে আলোচনা, সমালোচনা-বিতর্কের পর অবশেষে সিদ্ধান্ত এল, তবে এরপর পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানটা হলো ম্যাড়মেড়ে। ম্যাচের অতিথি নাজমুল হাসান পাপনের সঙ্গে পুরস্কারমঞ্চে উঠলেন শুধু বাংলাদেশ ও ভারতীয় দলের দুজন করে খেলোয়াড়। ট্রফি নিয়ে একটা ছবি হলো, এ-ই তো! ভারতের খেলোয়াড়েরা আর মাঠে আসেননি, বাংলাদেশ দল পুরষ্কার মঞ্চে দুয়েকটা ছবি তুলে চলে গেল।

কমলাপুর স্টেডিয়ামে এর আগে ম্যাচে এবং ম্যাচের পরে পরতে পরতে হলো নাটক। নির্ধারিত সময়ে ম্যাচ ১-১ সমতায় শেষ হয়েছে। ম্যাচই নাটকীয়, ৮ মিনিটে শিবানির গোলে এগিয়ে যাওয়া ভারত ম্যাচজুড়ে বেশ ভালো প্রেসিং করে বাংলাদেশকে আটকে রেখেছিল। ৯০ মিনিট পর্যন্তও ভারত এগিয়ে ছিল, কিন্তু যোগ করা সময়ের তৃতীয় মিনিটে সাগরিকার গোল কমলাপুরের গ্যালারিতে বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস আনে।

নিয়ম অনুযায়ী এরপর টাইব্রেকার হলো, সেখানে দুই দলের ১১ শটের প্রতিটিই জড়াল জালে। এর মধ্যেও একদফা হলো নাটক, ভারতের নবম শটটা বাংলাদেশ গোলকিপার স্বর্ণা ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন, কিন্তু রেফারি আবার শট নিতে বলেন। কারণ, ভারতের খেলোয়াড় শট নেওয়ার আগেই স্বর্ণা গোললাইন ছেড়ে সামনে চলে এসেছিলেন।

দুই দলের ১১ শটের পর নিয়ম অনুযায়ী, ম্যাচের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত আবার শেষ বাঁশির সময়ে মাঠে থাকা এগারো খেলোয়াড় একে একে শট নেওয়ার কথা। বাংলাদেশ অধিনায়ক আফিদা আবার শট নিতে এসেছিলেন, কিন্তু তখনই রেফারির সঙ্গে কথা বলেন ম্যাচ কমিশনার। এরপর হঠাৎ দুই অধিনায়ককে ডেকে টস করা হয়। বাংলাদেশ তখন আপত্তি করেনি। টসে ভারত জেতার পর ভারতীয় দল উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে, ওদিকে বাংলাদেশ ডাগআউট থেকে তখন আপত্তি ওঠে। হয়তো তড়িঘড়ি করে টস হয়ে যাওয়ায় টসের সময়ে আপত্তি করার সময় মেলেনি।

বাংলাদেশের আপত্তি যৌক্তিক – নিয়ম অনুযায়ী টসে তো শিরোপার ভাগ্য নির্ধারণ হওয়ার কথা নয়! ম্যাচ কমিশনার ও রেফারির সঙ্গে বচসা শুরু হয় বাংলাদেশ দলের কর্তাব্যক্তিদের। ওদিকে ভারতীয় দল ততক্ষণে স্টেডিয়ামজুড়ে ভিক্টরি ল্যাপ দিয়ে চলেছে। কিন্তু বাংলাদেশের আপত্তির পর ম্যাচ কমিশনার জানান, তাঁর সিদ্ধান্ত ভুল ছিল, তাই টসের সিদ্ধান্ত বাতিল। আবার টাইব্রেকার চালিয়ে যাওয়ার রায় দেন। কিন্তু ভারত তা মানতে আর রাজি হয়নি। তারা মাঠ ছেড়ে যায়। ম্যাচ কমিশনার জানান, ৩০ মিনিটের মধ্যে ভারতীয় দল মাঠে না এলে বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হবে।

ভারতীয় দল আসেনি। বাংলাদেশ দল মাঠেই ছিল। কিন্তু প্রাথমিক ভুলটা ভারত বা বাংলাদেশ কোনো দলেরই না হওয়ায়, ভারত টসে জেতায়, শেষ পর্যন্ত দুই দলকেই চ্যাম্পিয়ন ঘোষণা করা হলো।

এই ধরনের আরও খবর

Advertising

আর্কাইভ

আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপন দিন এখানে

জেলা প্রতিনিধি হতে যোগাযোগ করুন

সপ্তাহের সেরা ছবি

© All rights reserved © 2022 bongobazarpatrika.com
Theme Download From ThemesBazar.Com